অদম্য ঈদ উদযাপন; ‌স্বপ্ন জয়ের গল্প – ২

স্বপ্ন জয়ের গল্প – ২
মো. মনজুর আলম, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, সুনামগঞ্জ।

‘আমি খুবই উৎফুল্ল এবং বড ভাইদের আমন্ত্রণে আসতে পেরে বেশ ভালোই লাগছে। এখানে সব অতিথি আমার সিনিয়র। উনাদের সামনে আমার সফলতার গল্প বলাতে আমি ইতস্তত বোধ করছি।’

মো. মনজুর আলম

– সামনের সারিতে যারা আছেন তাদের উদ্দেশ্যে কথা বলবো। এখানে অনেকেই এবার এসএসসি পরীক্ষার্থী আছো। তাদের প্রথম স্বপ্ন থাকতে হবে রেজাল্ট ভাল করা। তোমাকে উপরের সিঁডিতে পা দিতে হলে অবশ্যই একাডেমিক পরীক্ষায় সাফল্য আনতে হবে। তারপর ভাল কলেজে ভর্তি হতে পারবে। এইচএসসি পরীক্ষা আরো বেশি চ্যালেঞ্জিং। পরীক্ষাটা দেয়ার পরপরই স্বপ্ন টার্গেট করে ওই মোতাবেক কঠোর অধ্যয়ন করতে হবে। সাফল্য অর্জন করতে হলে নিজের অবস্থানটাই জরুরি। তাই সঠিক নিয়মে চলতে হবে।

– আমি যখন ঢাকা বিশ্ব বিদ্যালয়ের হলে থাকতাম, দেখতাম ওখানকার অনেক ছাত্র রাত ২-৩ টা পর্যন্ত ক্যাম্পাসে আড্ডা দিত। তারপর হলে ফিরত। কিন্তুু ওই পরিবেশটিতে আমি আমার অবস্থান ঠিক রাখতে পেরেছি বলেই আজকের অবস্থানে আসতে পেরেছি। মনে রাখতে হবে, কোন কিছু শেখা ছাডা বাড়তি সময় অপচয় করা যাবে না। হোক সেটা ফেইসবুক বা অন্যকিছু।

– আর যারা বিবিএ বা অনার্স ২য় বর্ষ বা ৩য় বর্ষে আছেন, তারা এখন থেকে নিজের প্রতিভা নিয়ে চাকরির জন্য চেষ্টা করুন। কারণ এখন চাকরির বাজার অনেক কঠিন। আপনাকে এসব ব্যাপারগুলোতে অভিজ্ঞ হতে হবে খুব।

– প্রেমের সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে একজন মনীষীর একটা কোড দিয়ে শেষ করব। উনি বলেন, ‌’আমি মৌমাছির পেছনে দৌড়ালাম, প্রজাপতি, মৌমাছি অনেক পাললাম যত্ন করে। কিন্তুু কোনটাই থাকেনা, সবই চলে যায়। পরে ভেবে দেখলাম, একটা বাগান তৈরি করব। ঠিক বাগান তৈরি করলাম অনেক সাধনা করে। এখন হাজার হাজার মৌমাছি আমার বাগানে এসে ভিড় করে। ছোট ভাইদের বলবো, সবাই নিজের বেসিকটা কাজে লাগিয়ে বাগান তৈরি করো আগে। মৌমাছির পেছনে দৌড়ানো লাগবে না। তোমার বাগানে এসে ওরা ভিড করবে।

– আমার শ্রদ্ধেয় বড ভাই জাকারিয়া ফারুক একসময় এই বিদ্যালয়ের তুখোড় মেধাবী ছাত্র ছিলেন। শাহজান স্যার, কালাম বিএসএসি স্যারের মুখে ভাইয়ের কথা ক্লাসে শুনতাম। আজ একসাথে বসতে পেরেছি বলে ভাগ্যবান মনে করছি। অদম্যকে ধন্যবাদ, ভাল একটি মুহূর্ত্ব উপহার দেয়ার জন্য। ভাল থাকবেন সবাই।

উল্লেখ্য, গত ৪ সেপ্টম্বর অদম্য-২০০৫ ও অদম্য ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশন আয়োজন করে ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময় ও স্বপ্ন জয়ের গল্প অনুষ্ঠানের। উক্ত অনুষ্ঠানে উপস্থিত থেকে মো. মনজুর আলম তার গল্প তুলে ধরেন।

অনুলিখন : নিয়াজ মুহাম্মদ সাজেদ, সহ সভাপতি, অদম্য-২০০৫।