আমরা সফল হতেই এসেছি

Anamul

এনামুল হক সোহাগ

এনামুল হক সোহাগ

অদম্য-২০০৫ বন্ধুদের জানার স্বার্থে সম-সাময়িক কিছু কথা উপস্থাপন করছি। ইতোমধ্যে সবাই আমাদের লক্ষ্য-উদ্দেশ্য সম্পর্কে অবগত হয়েছেন। সেদিকে আর না গিয়েই সরাসরি বলছি- আমরা সফল হতেই এসেছি। হাতে হাত রেখে এগিয়ে যেতে হবে আমাদের। পথটি ভঙ্গুর হলেও কষ্টের কিছু নেই, ভেবে দেখুন দৃঢ় মনোবলই আমাদের লক্ষ্যে পৌঁছাতে সহায়ক ভূমিকা রাখছে! বিগত দিনের কাজগুলোর সঙ্গে তফাৎ করুন, সত্যটা নিজেই যাচাই করে নিতে পারবেন।

প্রথম ধাপ :

আমরা পেরেছি একত্রিত হতে।

দ্বিতীয় ধাপ :

একত্রিত হয়ে বসে থাকলে চলবে না। সেজন্যে আমাদের লক্ষ্য স্থির হলো, অর্থনৈতিক ভাবে মুক্তির স্বাদ নেয়া। লক্ষ্য অনুযায়ী আমাদের সংগ্রাম করে যেতে হবে। আর তাই নিজেদের ভবিষ্যত ভেবে সবাই সঞ্চয়ে আগ্রহী হয়েছি। এ রথে অনেক-কেই সাথে পেয়েছি।

তৃতীয় ধাপ :

সঞ্চয় পরবর্তী আমরা ব্যবসায় মনোযোগী হবো প্রতিজ্ঞা করেছিলাম। সে অনুযায়ী আমাদের প্রথম প্রকল্প ‘অদম্য এগ্রিকালচার প্রজেক্ট’ ইতোমধ্যে শুরু করতে পেরেছি। আশা করি সবাই এ বিষয়টিতেও অবগত রয়েছেন। যেহেতু পথ দীর্ঘ, একসঙ্গে অনেক পথ হাঁটার উদ্দেশ্যে ফের মাঠে নেমেছি। ‘অদম্য এগ্রিকালচার প্রজেক্ট’-এ সব বন্ধুদের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করার জন্যে প্রতি শেয়ারের মূল্য ধরা হয়েছে মাত্র ১০,০০০/- টাকা। দুই কিস্তি করেও জমা করতে পারবেন যেকোনো শেয়ার বন্ধু। ‘অদম্য এগ্রিকালচার প্রজেক্ট’ একটি দীর্ঘস্থায়ী ও চলমান প্রক্রিয়া। অদম্য বন্ধুরা জেনে খুশী হবেন, যেসকল বন্ধু ‘অদম্য এগ্রিকালচার প্রজেক্ট’- এ একবার শেয়ার ক্রয় করবেন তিনি এ প্রকল্পের আজীবন সদস্য হিসেবে বিবেচিত হবেন। বন্ধুদের অবগতির জন্য আরো জানিয়ে রাখছি, যারা শেয়ার ক্রয় করবেন তাদের সঙ্গে অদম্য-২০০৫ এর পক্ষে কমিটি চুক্তিবদ্ধ হবে, যা স্ট্রামের মাধ্যমেই নিশ্চিত করা হবে। বন্ধুরা জেনে আরো আনন্দিত হবেন, আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি প্রথম শেয়ারের টাকা দিয়ে আমরা গরু কিনবো। লভ্যাংশ বাদ দিয়ে প্রতিবার মূলধন পুনরায় ব্যবসায় খাটানো হবে। মূলধন (১০,০০০/- টাকা) ফেরত দেয়া হবে না। কারণ এ মূলধন পরবর্তীতে ‘অদম্য এগ্রিকালচার প্রজেক্ট’ এর আওতায় মৎস্য, পোল্ট্রি ইত্যাদি খাতে বিনিয়োগ করা হবে।

anam

চতুর্থ ধাপ :

মনে রাখতে হবে আমরা সবাই একটি পরিচয় বহন করি, তা হলো আমরা সবাই বামন সুন্দর এফ এ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্র। প্রাক্তন ছাত্র হিসেবে স্কুলের জন্যেও কিছু করতে হবে। আমরা উদ্যোগ নিয়েছি স্কুলের বিভিন্ন প্রোগ্রামে সক্রিয় অংশগ্রহণসহ স্কুলের গরীব ও মেধাবী ছাত্রছাত্রীদের মাঝে বই খাতা বিতরণ, গরীব ছাত্রছাত্রীদের ফরম পূরনে সহযোগীতা করা এবং বিভিন্ন জাতীয় দিবস পালন করবো। এছাড়া ইফতার পার্টি , ঈদ পূনমিলনী, ঈদে মিলাদুনবী(সঃ) উদযাপন সহ যাবতীয় আচার-অনুষ্ঠান পালনের জন্যে বার্ষিক একটা ফি নির্ধারণ করেছি। যা মাত্র ৫০০ টাকা। আশা করি, এ কাজটি আমরা স-গৌরবে করতে পারবো। কারণ, এ টাকাটা দিতে কারো কোন সমস্যা হবার কথা নয়। যেহেতু কত টাকাই না আমরা কত দিকে খরচ করি। তা না হয় আর মাত্র ৫০০ টাকা সংগঠনের জন্য খরচ করবো। প্লিজ এ দিকটা বিবেচনা করে সবাই প্রতিবছর জানুয়ারি থেকে জুন এর মধ্যে বার্ষিক ফি দিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করবেন।

পঞ্চম ধাপ :

আমরা প্রতি বছর ২৯ রমজানে ইফতার পার্টি করবো আশা করছি। ঈদের পরদিনই ঈদ পূর্নমিলনী করবো ভাবছি। সেদিন সবাই একই রঙের জামা পরার সিদ্ধান্তও নিয়েছি। সবাই মিলে অন্য এক ভূবন তৈরি করবো ইনশাআল্লাহ।

এবার শুধু এগিয়ে যাওয়া পালা বন্ধুরা। আগেই বলেছি- আমরা সফল হতেই এসেছি।

লেখক :  সভাপতি, অদম্য -২০০৫।